শিক্ষক সমাজের প্রতি অনুরোধ

খুরশিদ জামান কাকন:

তোর দ্বারা কিছু হবে না, তুই জীবনে কিছু করতে পারবি না, তোর ভবিষ্যৎ অন্ধকার”। উপরের কথা গুলো চর্চা করা আমাদের শিক্ষক সমাজের যেনো দৈনিকের রুটিন। যদিওবা এসব কথা বলার মূল উদ্দেশ্য ছাত্রছাত্রীকে নিজেদের প্রতি সজাগ ও সচেতন হওয়ার আহবান জানানো।

কিন্তু এসব কটু কথার ইতিবাচকের চেয়ে নীতিবাচক প্রভাবটাই বেশি পড়ছে সংখ্যাগরিষ্ঠ ছাত্রছাত্রীদের মাঝে। এসব কথাবার্তা একজন ছাত্রকে আরো হতাশার মধ্যে ফেলে দেয়। সে নিজের উপর বিশ্বাস হারিয়ে ফেলে। সে ধরেই নেয় যে তার দ্বারা কিছু হবে না। যার ফলে তার মধ্যে কোন প্রকার কর্মপপ্রচেষ্টার লক্ষন দেখা যায় না।

কথায় আছে একটা মন ভাঙ্গা আর মসজিদ ভাঙ্গা সমান কথা। শিক্ষকের কথায় যদি একজন ছাত্রের মন ভেঙ্গে যায়, তখন কি আর পড়ায় মন থাকে। শিক্ষকের এসব অমঙ্গলজনক কথা ছাত্রছাত্রীদের মাঝে অনেক বিরূপ প্রভাব পড়ে।

আমাদের শিক্ষক সমাজ বেত্রাঘাতকে পড়াশোনা শেখানোর মূলমন্ত্র মনে করে। বর্তমানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বেত্রাঘাত নিষিদ্ধ করা হলেও কমেনি মানুষিক প্রহার করার প্রবণতা।

শিক্ষকতা একটা মহান পেশা। আর এ মহান পেশার সাথে সংশ্লিষ্ট থাকা সকল শিক্ষকেই যে একজন প্রকৃত শিক্ষক হওয়ার মতো পর্যাপ্ত গুণাবলি অর্জন করবে তা কিন্তু নয়।

শিক্ষকেরা কি পারে না যে ছেলেটা শ্রেনীকক্ষে সবচেয়ে অমনোযোগী তার মনোযোগে ফিরিয়ে আনতে তার সাথে একান্ত দুটো ভালো কথা বলতে, তার সমস্যা গুলি শুনে যথাযথ সমাধান দিতে সহায়তা করতে। শিক্ষকেরা কি পারেনা উৎসাহ ও উদ্দীপনা দিয়ে অমনোযোগী ছাত্রটিকে পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি করাতে।

সবসময় শারীরিক বা মানুষিক আঘাত করে সুফল পাওয়া যায় না, চেষ্টা করুন না মাঝেমধ্যে ছাত্রছাত্রীদের সাথে ফ্রেন্ডলি মিশতে। তাদের মাঝ থেকে পড়াশোনা নামক ‘ভীতি’ কাটিয়ে উঠাতে সহায়তা করুন।

আপনি আপনার যোগ্যতা দিয়ে এ মহান পেশা শিক্ষকতার দায়িত্ব পেয়েছেন, তো এবার চেষ্টা করুন না নিজের সর্বচ্চো আন্তরিকতা দিয়ে ছাত্রছাত্রীদের মন জয় করতে। আপনার একটু উৎসাহ ও অনুপ্রেরনায় পারে ছাত্রদের সফলতার পথ প্রসারিত করতে।।

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password